Categories
কবিতা

কলা ও কাউয়া

কলা যেমন ফল
তার কাউয়া তেমন পাখি রে…
কলা যেমন ফল তার
কাউয়া তেমন পাখি রে
কলার ছোলকা কলায় থাকে না।

কাউয়া ডাকে কা কা।
কলা বলে কলা খা।

কোথায় রইলা দোরা কাউয়া রে–
আমার কোথায় রইল দোরা কাউরা রে!
আমার কলা ফল রে।

১/৮/২০১১

free counters

Categories
কবিতা

পরিচিত দৃশ্যাবলী

সব দৃশ্য পরিচিত

হোন্ডার পিছনে যে বসে আছে, যে মেয়েটি

কাঁধে হাত দিয়ে সে যে

সামনের লোকটার মেয়ে না প্রেমিকা

তা তো জানা… যে গেল না…

সেই পরিচিত দৃশ্য তুমি

বারবার

দেখতে থাকবে যেহেতু রাস্তাই

তোমাকে বহন করবে আরো বহুদিন

আরো বহুদিন তুমি

লিফট ঘরে নিরবেই নামতে থাকবে

যাত্রীদের সঙ্গে কোনো

বাক্যালাপ ছাড়া

যেন এই চোখ অভিশপ্ত

জন্ম মাত্র এই চোখ

অভিশপ্ত

এই চোখ যা দেখেছে একবার

বারবার তাই সে দেখেছে

তাই সে দেখতে থাকবে

বারবার

ফলত তোমার

না দেখে উপায়

থাকছে না সে পরিচিত দৃশ্য যার

পেছনে হোন্ডার

সে মেয়েটি

কাঁধে হাত দিয়ে যে সে

সামনের লোকটার মেয়ে না প্রেমিকা

তা তো জানা… যে গেল না…

সেই পরিচিত দৃশ্য তুমি

বারবার

দেখতে থাকবে যেহেতু রাস্তাই…।

২৬ এপ্রিল ২০১১

free counters

Categories
কবিতা

পার্টিতে, সবুজ রঙ একটি মেয়েকে

আমি কি তোমার প্রেমে পড়বো নাকি–

তোমার শরীর?

আমার যা ভালো লাগে

শুকনা ও জটিল

তেরছা

গ্রীবা ও ভ্রুভঙ্গি

তার

বঙ্কিমতা

স্ফীত ওষ্ঠ সবচেয়ে ভালো–

তায় পরেছো সবুজ শাড়ি, অব-

হেলিত সবুজ–আততায়ী অত্যল্প সবুজে তুমি

যদি ভালো লাগে যদি

হাত ধরতে চাই তার

হাত বলতে আঙুলে ছড়ানো তালু

রেখা আর অকোমল

ঘেঁষটে যাওয়া আঙুলের

দূর মনে হয়–

মনে হয় এ শরীর বিবাহিত

এ শরীর বার বার ব্যবহারে

সুবিন্যস্ত, বিনীত, সিদ্ধান্তহীন,

দুইপাছড়ানো, যেন

নিআব্রু, নিপাট, সাদা

সমাজসর্বস্ব এই কেবলই শরীর

আমি

ধরে দেখতে চাই যদি–

কোন ভাবে তোমাকে ধরবো?

বলো

বলো ও অধরা!

৪ জুলাই ২০১১

free counters
Free counters

Categories
কবিতা

স্বপ্নে আমি কে

স্বপ্নে কোনো নাম নেই

স্বপ্নে আমি শিরোনাম ছাড়া

যার স্বপ্ন দেখি তার

হয়ে দেখি

নাকি আমি সে-ই?

 

আলো হোক

অন্ধকার

তীব্র নাকি

মৃদু কোনটা?

দিন রাত্রি

দুপুর মধ্যাহ্ন সন্ধ্যা

সাঁঝকাল অথবা বিকাল

ভোর

পরিণাম ছাড়া

টিলার উপরে আমি বসে আছি

বসেই থাকছি

আর এক স্বপ্নে উবে গিয়ে

ফের দেখি অন্য স্বপ্নে

টিলার উপরে

আমি বসে আছে

তাকে দেখছি

নাকি দেখছি

নিজেকেই

নাকি শুধু পরিপার্শ্ব দেখি

উঁচু নিচু রাস্তা দেখি

হঠাৎ উঠেছে

আর পড়ে গেছে ধুপ করে

নিচে কোনো সন্ধ্যবেলা জর্জরিত

অল্প আলো নীরব পাড়ায়

বাড়ি দেখি

গাড়ি কম

নাকি নেইই?

স্বপ্নে আমি কোনোদিন গাড়ি দেখি নাই

স্বপ্নে আমি

অতি উচ্চ ছাদ থেকে

পড়ে যাই

শব্দহীন

বাতাসতাড়িত

দেখি নৌকা করে যাচ্ছি আমি

পড়ে যাওয়া থেকে নৌকা

কীভাবে বদলায়

তার দৃশ্য নাই

পানি আছে

পানিতে সয়লাব সব

উঁচু উঁচু দালানের মধ্য দিয়ে নদীরা চলেছে

সঙ্গে নৌকায় যে শুয়ে আছে

চোখ বন্ধ

সে কে?

সে কি পড়ে গিয়েছিল

ওই উঁচু

পর্বতের চূড়া থেকে?

সে কেন শুয়েছে

সেই একই নৌকায়

যেখানে আমিও

শুয়ে নেই

কিন্তু যাচ্ছি একই দিকে–

একই দিকে!

একই নৌকা বলে?

অন্য পাড়ে

ঘাটে আছে নৌকা বাঁধা

আরো নৌকা পানিতে ভাসছে

সঙ্গে

কেউ নেই

আর

তবু সেখানে নামতে হবে

কেন নামি

কেন স্বপ্নে সেখানেই নামি

কেন সরু রাস্তা হেঁটে গেলে

হসপিটাল দেখি?

স্বপ্নে আমি এত বার হাসপাতাল দেখি!

 

স্বপ্ন শেষ হলে পরে

জাগরণে ঢুকলে পরে

দ্রষ্টাগিরি শুরু

কাটা কাটা আলগা আলগা

আলাদা আলাদা এত দেখাদেখি

কে জানে বা কারা দেখে

আমি তো দেখি না

আমি দেখতে চাই না কোনো স্বপ্ন

কোনো স্বপ্নে যেন আমি

নিজেকে না দেখি!

৫/৮/২০১১